Home » হাড়জোড়া এর উপকারিতা ও ঔষধি গুনাগুন
তৃন-লতা হাড়জোড়া

হাড়জোড়া এর উপকারিতা ও ঔষধি গুনাগুন

হাড়জোড়া এর উপকারিতা ও ঔষধি গুনাগুন

হাড়জোড়া এর উপকারিতা ও ঔষধি গুনাগুন

 

বৈজ্ঞানিক নামঃ Cissus quadrangularis Linn.

পরিবারঃ Vitaceae

ইংরেজি নামঃ Large Granadilla

পরিচিতি

হাড়জোড়ার লতাটি হাড়ভাঙা নামেও পরিচিত, তবে নামটি হাড়জোড়া হওয়াই যুক্তিসঙ্গত। এটি চারকোনাবিশিষ্ট সবুজ রসালো লতা। ৬-১১ সে.মি. লম্বা পর্ব পরপর জুড়ে শিকলের আকৃতি ধারণ করে। প্রতিটি পর্বসন্ধি বা node -এর এক পাশ হতে একটি পাতা এবং অন্য পাশ হতে একটি আকর্ষি বা tendril গজায়। পাতা হৃৎপিণ্ডের মতো, বোঁটাসহ লম্বা ৬-৭ সে.মি. ও চওড়া ৫-৬ সে.মি. এবং ৩-৫ অংশে বিভক্ত। লতার শীর্ষ থেকে এক একটি পর্ব জুড়ে শিকলের ন্যায় হাড়জোড়া বেয়ে চলে । লতা যত বাড়তে থাকে তত গোড়ার থেকে পাতা বা আকর্ষি যবে পড়ে। ছোট ছোট গুচ্ছাকারে লোমযুক্ত সাদা সাদা ফুল ধরে। পাকা ফল দেখতে লাল ও রসালো আকারে মটরদানার মতো।

বিস্তার

বাংলাদেশে সাধারণত সুন্দরবনে এটি প্রাকৃতিকভাবে জজন্মে। তবে অন্যান্য এলাকায় রোপণ করলে জন্মে। লতানো এই গাছটি পাঁচিল বা বেড়ার শোভা বর্ধনের জন্য লাগানো যেতে পারে।

ঔষধি গুণ

১। হারজোড়া বা অস্থিসংহার হাড়ভাঙায় অত্যন্ত কার্যকর। এর ডাঁটা ও পাতা সমপরিমাণ রসুন ও গুগগুলু একসাথে বেটে একটু গরম করে ভাঙা স্থানে প্রলেপ দিলে ভাঙা হাড় জুড়ে যাবে।প্রলেপটি ২/১ দিন পরপর পরিবর্তন করে লাগাতে হবে।

২। হাড়জোড়ায় oxo Steroid নামক একটি রাসায়নিক যৌগ রয়ে যা ভাঙা হাড় জোড়া লাগাতে সাহায্য করে। (IJP, 1962; IJMR, 1976); সে কারণে হাড়ভাঙার ফোলা ও ব্যাথা সরাতে সমপরিমাণ হাড়জোড়ার ডাঁটা, গন্ধবাদালি ও নিশিন্দা পাতার সাথে অর্ধেক পরিমাণ ধুতরার পাতা একসাথে বেটে গরম করে প্রলেপ দিলে ব্যথা ও ফোলা দুইই চলে যাবে।

৩। অনিয়মিত ঋতুস্রাবে অর্থাৎ মাসের দিনগুলি এগিয়ে পিছিয়ে গেলে কচি হাড়জোড়ার ডাঁটা কুচি কুচি করে কেটে গুকিয়ে সেই গুঁড়া ২ টিপ পানিসহ দিনে ২ বার কিছুদিন খেলে ঋতুস্রাব স্বাভাবিক হবে।

৪। উপর্যুক্ত গুঁড়া সকাল-বিকাল ২ বার খেলে শ্বাস রোগেরও উপশম হয়।

৫। কৃমির উপদ্রব হলে উপর্যুক্ত হাড়জোড়া চূর্ণ ঘিয়ে ভেজে পানিসহ ২/৩ টিপ দিনে ২ বার খেলে এ অসুবিধা চরে যাবে।

৬। কানের প্রদাহে ডাঁটার রস উপকারী (Ghani, 2003); কানে পুঁজ হলে ৫০ গ্রাম সরিষার তেলে ২৫ গ্রাম হাড়জোড়ার ডাঁটা চাকা চাকা করে কেটে আলুভাজার মতো ভেজে ঐতেলের ২/১ ফোঁটা করে কানে দিলে কানের প্রদাহ সেরে যাবে।

৭। হাড়জোড়ার লতা ও পাতার অ্যলকোহলীয় নির্যাস উচ্চ রক্তচাপ রোধ ও মূত্রবর্ধক হিসেবে কাজ করে।

৮। কচি ডাঁটার ভষ্ম বদহজম, পেট ফাঁপা ও অন্যান্য পেটের পীড়ায় ওষুধ হিসেবে ব্যবহার হয়।  (Ghani, 2003)

৯। কোনো কারণে নাম দিয়ে রক্ত পড়লে এ ডাঁটার রস নাকে ব্যবহার করলে রক্ত পড়া বন্ধ হব। (Ghani, 2003)

 







past