বৈজ্ঞানিক নাম: Hibiscus mutabilis Linn.
পরিবার: Malvaceae
ইংরেজি নাম: Cotton rose.

1পরিচিতি:

স্থলপদ্ম মাঝারি আকারের ঝোপঝাড়যুক্ত গাছ। এটি সাধারণত ৩-৪ মিটার পর্যন্ত উঁচু হয়। পাতার আকার ও আকৃতি অনেকটা ঢেঁড়স পাতার মতো; তবে ততটা খসখসে নয়। কিন্ত কাণ্ড লোমশ এবং খসখসে। ফুলের গঠন পঞ্চমুখী জবাফুলের মতো, তবে আকারে অপেক্ষাকৃত বড়। ফুল সকালের দিকে গোলাপি এবং বিকালের দিকে সংকৃচিত হয়ে লাল বর্ণ ধারণ করে। বর্ষাকালে ফুল ফোটে এবং শীতকালে ফল পাকে।

2বিস্তার:

চীন স্থলপদ্মের আদি নিবাস। বর্তমানে বাংলাদেশে সব অঞ্চলে এটি ফুলবাগানে রোপণ করা হয়। এই গণে প্রজাতির সংখ্যা ৩৩টি।

3বংশবৃদ্ধি:

শাখা কলম ও বীজ দিয়ে বংশবৃদ্ধি করা হয়।

4ঔষৈধি গুণাগুণ:

১। স্বাভাবিকভাবে প্রস্রাব হয় না; হলেও কষ্ট হয়, পরিমাণে অল্প বা ফোঁটায় ফোঁটায়। এসব ক্ষেত্রে একটি স্থলপদ্ম ফুলের পাপড়ি ১.৫ কাপ পানিতে চটকে ছেঁকে শরবত করে খেলে ২/৩ ঘন্টার মধ্যেই স্বাভাবিক প্রস্রাব হবে বলে আয়ুর্বেদশাস্ত্রের বিধান।

২। মহিলাদের অনিয়মিত মাসিক, সাথে কোমরে বা তলপেটে যন্ত্রণা; এমন ক্ষেঁত্রে মাসিক আরম্ভ হওয়ার ৭-৮ দিন পূর্ব থেকে আধা গ্রাম স্থলপদ্মের কাঁচা ছাল শুকিয়ে গুঁড়া করে পানিসহ প্রতিদিন খেতে হবে। এভাবে ২/৩ মাস খেলে এ সমস্যার লক্ষণীয় উন্নতি হবে। তবে খালি পেটে এটি না খাওয়া ভালো।

৩। যুবক বয়সের ছেলেমেয়েদের অনেক সময় লক্ষণীয় পিপাসা, হাত-পায়ের তলা ও জিভ শুকিয়ে যায় এবং জিভে ময়লা জমে থাকে। এরকম অবস্থায় আধা গ্রাম স্থলপদ্ম গাছের চাল গুঁড়া পানিসহ প্রতিদিন সপ্তাহখানেক খেতে হবে। এতে উন্নতি না হলে আধা গ্র্রাম পাতার গুঁড়া পানি সহ একইভাবে সপ্তাহখানেক খেলে উপকার পাবেন।

5Chemical Composition

Flower contains–a) flavonoids.
Black yields–a) strong fiber (Bhattacharia, 1980).