বৃক্ষরিঠা

রিঠা/অরিষ্ট এর উপকারিতা ও ঔষধি গুনাগুন

বৈজ্ঞানিক নামঃ Sapindus trifoliatus Linn.
পরিবারঃ Spindaceae
ইংরেজি নামঃ Soap nut tree

পরিচিতি



রিঠা বহু শাখা-প্রশাখাবিশিষ্ট গাছ। সাধারণত ১০-১২ মিটার উঁচু হয়ে থাকে। পাতা যৌগিক। পত্রদণ্ড লম্বা ২০-২৫ সে.মি. হয়। ফল ও বীজ গোলাকার। ঘন কালো বীজ, শাঁস আছে। ফল পানিতে ভিজিয়ে রাখলে বহিরাবরণ থেকে ফেনা হয়। আগে উলের তৈরি পোশাক পরিষ্কার করতে রিঠা ব্যবহার করতে দেখা যেত। এটিকে সাধারণত বড় রিঠা বলে। ছোট রিঠা বলে একটি প্রজাতি আছে। এটির বোটানিক্যাল নাম S mukorossi, বড় রিঠার পাতার অগ্রভাগ লম্বাটে চিকন ও লোমাবৃত। ছোট রিঠার অগ্রভাগ চওড়া, ভোঁতা, পাতার নিচের দিকটা লোমাবৃত। এটির ফুল ডিসেম্বরে না হয় মার্চ মাসে এবং ফল নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে হয়।
বিস্তার
শ্রীলঙ্কা ও ভারত রিঠার আদি নিবাস। বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে গাছটি দেখা যায়। এগণের সংখ্যা ১৩টি।



ঔষধি গুনাগুন
১। কৃমির দোষে মল অস্বাভাবিক শক্ত বা আমযুক্ত হতে পারে। এরূপ ক্ষেত্রে ১ কাপ পানিতে ১০০ মি.গ্রা. রিঠা ফল গুঁড়া করে রাতে ভিজিয়ে রেখে সকালে ছেঁকে ঐ পানি খেলে কৃমির উপদ্রব থাকবে না।
২। বয়সে না পৌঁছিয়ে বা গর্ভ না হলেও রজঃ বন্ধ, এ ক্ষেত্রে আধা কাপ গরম পানিতে ১০০ মিলিগ্রাম রিঠা ফল গুঁড়া ২/৩ ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে ছেঁকে প্রতিদিন সকালে ৩/৭ দিন খেলে সমস্যা থাকবে না। (Bhattacharia, 1982)।
৩। উকুননাশে কোনো রাসায়নিক দ্রব্য বা সাবান ব্যবহার না করে রিঠা ব্যবহার করে দেখতে পারেন। রিঠা ভিজানো পানিতে ১ দিন অন্তর অন্তর ২/৩ দিন চুল ভিজিয়ে কিছুক্ষন পরে ধুয়ে ফেলতে হবে; এতে উকুন কমে যাবে।


Chemical Composition

a) Leaves contain- Mineral matter & calcuim oxide. b) Fruit contains- glucose & saponin. c) Kernels contain- Unsaponin matter, essential oil, etc. (Bhattacharia, 1989).

Show More
Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker